1. pirojpurpost24@gmail.com : admin :
  2. kumarshuvoroy@gmail.com : Shuvo Roy : Shuvo Roy
  3. epiropur@gmail.com : e p : e p
  4. eshuvo1@gmail.com : shuvo roy : shuvo roy
রাজাপুরে পানির মধ্যে ঘর তুলে ও গাছের গুড়ি ফেলে অন্যের জমি দখল | পিরোজপুর পোষ্ট ২৪
মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:২০ পূর্বাহ্ন

রাজাপুরে পানির মধ্যে ঘর তুলে ও গাছের গুড়ি ফেলে অন্যের জমি দখল

  • শেষ হালনাগাদ : শুক্রবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ৬০৫ জন সংবাদটি দেখেছেন

পিরোজপুর পোষ্ট ডেক্স : ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার ১নং সাতুরিয়া ইউনিয়নে নদীর মাঝে ঘর তুলে ও অন্যের দোকানঘরের পেছনে গাছের গুড়ি ফেলের জমি দখলের চেষ্টা চালাচ্ছেন স্থানীয় স’মিল ব্যবসায়ী জনৈক আলতাব মীর। এছাড়া তিনি ৩০ শতাংশ ডিসিআর’র মালিক বলে দাবী করে বলেন, আমাকে ডিসি, টিএনও, এসিল্যান্ড জমি দিয়েছেন বলে দাম্ভোক্তি দেখান। একটি সূত্রে জানাগেছে তিনি জলডুবি (জলের মধ্যে) ডিসিআর কেটে মালিকানা দাবী তার। ঘটনাটি ঝালকাঠী জেলার রাজাপুর উপজেলার ১নং সাতুরিয়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড দক্ষিন তারাবুনিয়ার আলদারখালী বাজারের।

এ বিষয়ে গাছের গুড়ি ফেলে পথ বন্ধকরে দেয়া দোকান মালিক পক্ষে মোসাঃ কহিনুর বেগম আলতাব হোসেনের উৎপাত থেকে রেহাই পেতে ১ নং সাতুরিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, রাজাপুর থানাসহ বিভিন্ন দফতরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগের সূত্রধরে সরেজমিনে গিয়ে এর সত্যতা মিলেছে। দেখাগেছে, নদীর পাড়ের যেটুকু তার জমি তার সবটুকুতেই (পিছনের নদী পর্যন্ত) স’মিলে ব্যবহার হচ্ছে। যার পরিমান হবে উর্দ্ধে ৭/৮ শতাংশের মতো। তার বক্তব্য অনুযায়ী তিনি ৩০ শতাংশের মালিক। তবে সরেজমিনে এ জমির কোন হদিস মেলেনি। এছাড়া, উক্ত আলতাব নিজ স’মিলের সিমানা রেখে পার্শ্বের অন্যের দোকানের পেছনের জমি দখল নিতে রাতের আধারে স’মিলের গাছকাটা গুড়ির স্তুপ করে রেখেছে। ব্যবসায়ীদের চলাচল ও দৈনন্দিন কাজে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিতে পেশী শক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে জোরপূর্বক ঘরমালিকের ব্যবসায়ীর কাজে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতেই এসব করছেন। গাছের গুড়ি স্তুুপ করে রাখায় দোকানের পেছনের লাগানো জীবিত গাছগুলো মরে গেছে এবং কিছু গাছ ওই ব্যাক্তি কেটে ফেলেছে।

এছাড়াও, প্রশাসন তথা কর্তৃপক্ষের নজর এড়িয়ে নিজের স’মিলের জমি বৃদ্ধি করতে বিভিন্ন উপায়ে দিনদিন নদী ভরাট করে চলছেন। নদী ভরাটে ব্যবহার করছে গাছ, ইটসহ অন্যান্য উপকরন। এ অপচেষ্ঠা চালিয়েও খ্যান্ত হয়নি ভূমিদস্যু আলতাব। তিনি নদীর মাঝে টোং ঘর তুলে আরো বেশী জমি ভরাটের পরিকল্পনা এটেছেন। যা ঘটনাস্থলে গেলেই পরিস্কার বোঝা য়ায়।

এ বিষয়ে আলতাব মীরের সাথে আলাপকালে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমার বৈধ কাগজপত্র আছে সেই বলে আমি দখলে আছি। আমাকে সরকার ৩০ শতাংশের (৯৯ বছর) ডিসিআর দিয়েছে। আপনাকে দেয়া ৩০ শতাংশ অনেক, আপনি দখলে রয়েছে ৭-৮ শতাংশে, সেই বাকি জমি কোথায়? পাশের অন্যের দোকানঘর, সেই পথ বন্ধ করে দখলে নিয়েছেন কেন? এমন প্রশ্নের কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

এ বিষয়ে ১ নং সাতুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. সিদ্দিকুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি জানি, আলতাবকে আমি এক-দুই বার নয়, একাধিকবার দোকানঘরের পেছন থেকে স্তুপকরে রাখা গাছের গুড়ি সরিয়ে ফেলতে বলেছি। তিনি আমাকে জানিয়েছেন সরিয়ে ফেলেছে। বিষয়টি আবারও খোঁজ খবর নিয়ে দেখছি।

রাজাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইমরান শাহরিয়ার এ প্রতিবেদককে বলেন, এ অভিযোগ আমাদের কাছে এসেছিল। আমরা ওই ব্যাক্তিকে (আলতাব) বলে দিয়েছি তিনি যেটুকু স্থানে রয়েছেন তার বেশী বা অন্যের জায়গায় ভোগদখলের চেষ্টা থেকে বিরত থাকবে। এ বিষয়ে আমরা দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা নেব।

মাহা/ভান্ডা/বাবু

আরো সংবাদ
পিরোজপুর পোষ্ট ২৪ ডটকম - ২০১৮-২২। (অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের ছবি, ভিডিও ও সংবাদ কপি করা থেকে বিরত থাকুন)
Theme Customized By PIROJPURPOST24
কারিগরি সহায়তায়: Website-open
x