1. pirojpurpost24@gmail.com : admin :
  2. kumarshuvoroy@gmail.com : Shuvo Roy : Shuvo Roy
  3. epiropur@gmail.com : e p : e p
  4. eshuvo1@gmail.com : shuvo roy : shuvo roy
প্রচলিত গল্প থেকে (স্কুলে পড়ার সময়ে লোকমুখে শোনা ) | পিরোজপুর পোষ্ট ২৪
সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৪১ পূর্বাহ্ন

প্রচলিত গল্প থেকে (স্কুলে পড়ার সময়ে লোকমুখে শোনা )

  • শেষ হালনাগাদ : সোমবার, ২৬ আগস্ট, ২০১৯
  • ৬২৭ জন সংবাদটি দেখেছেন
বৃটিশ আমলে পুলিশের এসআই গন দারোগা নামেই পরিচিত ছিল । তখনকার দারোগা দের দাপট ছিল ব্যাপক । বেশিরভাগ দারোগাই ছিল অসম্ভব সাহসী। থানায় তাদের বড়বাবু বলে ডাকা হতো। ততকালীন সময় যশোর কোতোয়ালি থানার বড়বাবু ছিল হালিম দারোগা। তিনি ছিলেন অসম্ভব দাপটে আর দুঃসাহসী অফিসার । তখনকার সময়ে যশোর চাচড়া মোড়ে প্রচুর ডাকাতি হতো । হালিম দারোগা চ্যালেঞ্জ নিল ডাকাতি বন্ধ করার। তখনকার সময়ে দারোগারা ঘোড়ায় চলাচল করতো । কোন কোন ডাকাত দলের সরদারও ঘোড়ায় চড়ে ডাকাতি করতো । তো একদিন হালিম দারোগা গোপনে সংবাদ পায় চাচড়া মোড়ে রাতে ডাকাতি হবে । সেই মোতাবেক হালিম দারোগা চাচড়া মোড়ে গোপনে ওত পেতে থাকে । যথারীতি রাত গভীর হতে থাকে । হঠাৎ ডাকাত দলের আগমন টের পেয়ে হালিম দারোগা তার দল নিয়ে তাদের ধাওয়া । ডাকাত দল পালাইতে থাকে হালিম দারোগা ডাকাত সরদারকে ধরার জন্য তার পিছু নিয়ে ঘোড়া ছুটাইতে থাকে । তখন রাত্রিতে অন্ধকারে ভালোভাবে দেখা যাচ্ছে না তবুও ছুটে চলছে হালিম দারোগা । ডাকাত সরদারও তার ঘোড়ায় ছুটে চলছে । হালিম দারোগার ঘোড়া খুবই দ্রুত ছুটে চলছে এবং প্রায়ই কাছাকাছি চলে এসেছে। সে তার রিভলবার দিয়ে ডাকাত সরদারকে লক্ষ্য করে দুই রাউন্ড গুলি ছুড়ে কিন্তু লক্ষ্য ভ্রষ্ট হয়। হালিম দারোগার জেদ চেপে বসে সে ধরবেই । ছুটতে ছুটতে তার পুলিশ দলকে অনেক পিছনে ফেলে আসে । হালিম দারোগা জেদের বসে আরো জোরে ঘোড়া ছুটাইতে থাকে। ডাকাত সরদার রাস্তা ছেড়ে খোলা সমতল বিলে নেমে পড়ে, হালিম দারোগা পিছু পিছু চলতে থাকে । এক পর্যায়ে হালিম দারোগা ডাকাত সরদারের কাছে চলে আসে আর তাকে জাপটে ধরে মাটিতে পড়ে ধস্তাধস্তি করতে থাকে। হালিম দারোগা আবছা আলোতে খেয়াল করলো ডাকাত সরদার হিসেবে যাকে ধরে মাটিতে পড়েছে তার কোন মাথা দেখা যাচ্ছে না শুধুমাত্র ধর টুকু আছে। মাথা ছাড়া শরীর হালিম দারোগাকে প্রচন্ড জোরে ঘুসি মেরে ফেলে দেয় । হালিম দারোগা আরো খেয়াল করলো ডাকাতের ঘোড়ারও কোনো মাথা নাই । হালিম দারোগা এবার ভয় পেলো কিন্তু সাহস হারালো না । সে চিন্তা করতে থাকে এইটা কি এর তো মাথা নাই । সে প্রচন্ড শক্তি দিয়ে আঘাত করতে থাকে কিন্তু পেরে উঠে না । মাথাবিহীন সেই ডাকাত দারোগাকে মাটি থেকে উপরে তুলে দূরে ছুড়ে ফেলে দৌড়ে মাথাবিহীন ঘোড়ায় চড়ে বসে পালাইতে থাকে । দারোগা নাছড়বান্দা তাকে ধরতেই হবে সে উঠে দাঁড়িয়ে দৌড়ে গিয়ে মাথাবিহীন ডাকাতকে ধরে লাফ দিয়ে তার ঘোড়ার পিঠে চড়ে বসে ধস্তাধস্তি করতে থাকে । এক পর্যায়ে মাথাবিহীন ডাকাত দারোগাকে চলন্ত ঘোড়া থেকে ফেলে দেয়। পড়ার সময়ে ডাকাতের জামা টেনে ধরে জামা সহ মাটিতে পড়ে অজ্ঞান হয়ে যায়। এদিকে পুলিশ দল হালিম দারোগাকে খুঁজতে খুঁজতে প্রায় দশ মাইল দূরে বিলের মধ্যে অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে ততক্ষণে ভোরের আলো ফুটেছে । পুলিশ দল হালিম দারোগার মুখে পানি ছিটিয়ে দিলে তার জ্ঞান ফিরে আসে । হালিম দারোগা তার হাতের জামা দেখিয়ে বলে ডাকাতে জামা রেখে দিয়েছি । তখন ঐ গ্রামের একজন বলে উঠলো এটাতো মনা ডাকাতের জামা । দশ বছর আগে কারা যেন তার এবং তার ঘোড়ার মাথা কেটে নিয়ে শরীর ঐখানে ফেলে রেখে যায়। কেউ ভয়ে আর লাশ সৎকার করে নাই । লাশ সেখানেই পড়ে ছিলো । আর এই গ্রামে মনা ডাকাতের বাড়ি ছিল কিন্তু সেখানে কেউ থাকে না ।
লেখক : হাচনাইন আবু পারভেজ
পরিদর্শক , জেলা গোয়েন্দা শাখা- পিরোজপুর ।
আরো সংবাদ
পিরোজপুর পোষ্ট ২৪ ডটকম - ২০১৮-২২। (অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের ছবি, ভিডিও ও সংবাদ কপি করা থেকে বিরত থাকুন)
Theme Customized By PIROJPURPOST24
কারিগরি সহায়তায়: Website-open
x