1. pirojpurpost24@gmail.com : admin :
  2. kumarshuvoroy@gmail.com : Shuvo Roy : Shuvo Roy
  3. epiropur@gmail.com : e p : e p
  4. eshuvo1@gmail.com : shuvo roy : shuvo roy
পিরোজপুরের এক ফুটবল প্রেমী বাবা ও দেশ সেরা তার ৫ ফুটবলার ছেলেদের গল্প | পিরোজপুর পোষ্ট ২৪
বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৭:৫৯ পূর্বাহ্ন

পিরোজপুরের এক ফুটবল প্রেমী বাবা ও দেশ সেরা তার ৫ ফুটবলার ছেলেদের গল্প

  • শেষ হালনাগাদ : বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ৯৯৮ জন সংবাদটি দেখেছেন

শুভ রায় : পিরোজপুর সদর উপজেলার কলাখালী গ্রামের ইদ্রিস আলী সরদার একজন ফুটবল প্রেমিক । ফুটবলের উপরে তার ভালবাসা ও প্রেম আশির দশকে তাকে এনে দিয়েছিল সুখ্যাতি । ভালো খেলতেন বলেই ইদ্রিস আলীর ডাক পড়ত দক্ষিনাঞ্চলের মাঠ সহ ভাওয়াল, রাজেন্দ্রপুর, মধুপুর, টাঙ্গাইলসহ দেশের বিভিন্ন জেলার মাঠে । সাংসারিক জীবনের তোয়াক্কা না করে চলে যেতেন ফুটবলের ডাকে সাড়া দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে । সময়ের সাথে সাথে বয়সের ভারে তিনি খেলার মাঠ থেকে উঠলেও তাঁর হয়ে খেলছেন তার ৫ ছেলে। এরা হলেন লিটন ব্রাদার্স ইউনিয়ন ক্লাব থেকে অবসর নিয়ে ( বর্তমানে ব্রাদার্স ইউনিয়ন ক্লাবের কর্মকর্তা), শাকিল (জাতীয় দল ও চট্টগ্রাম আবহনী),এমিলি (জাতীয় দল ও শেখ রাসেল), এমেকা( মোহামেডান) ও সাব্বির (ব্রাদার্স ইউনিয়ন ক্লাব)।
ইদ্রিস আলীর ৫ ছেলেই এখন দেশ সেরা ফুটবলার। বাবা ও বড় ভাই লিটনের প্রেরনায় ওরা পাঁচ জনই একে একে ফুটবলার হয়ে ওঠে। শুরুটা হয় ১৯৯২-৯৩ মৌসুমে ঢাকার শান্তিনগর ক্লাবে খেলা শুরু করে লিটন । পরে ব্রাদার্স ক্লাবের হয়ে দীর্ঘ বার বছর সুনামের সাথে ফুটবল খেলেছেন তিনি । ইদ্রীস আলীর ইচ্ছে ছিল লিটনের মতও তার আর ৪ ছেলেকেও দেশ সেরা ফুটবলার হিসেবে গড়ে তোলা । এর জন্য তিনি বিভিন্ন প্রতিকূল অবস্থা থাকা সত্বেও তার ফুটবলার ছেলেদের উৎসাহ দিতেন । বাবার সেই উৎসাহ আর ছেলেদের চেষ্টা আজ তাদের এনে দিয়েছে সুনাম ও সুখ্যাতি ।শুধু দেশেই নয় পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের ফুটবলের মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন এই পাঁচ ছেলে। দেশের এমন কোন জেলা নেই যেখানের মাঠে গিয়ে তারা ফুটবল খেলেননি। খেলা নিয়ে ব্যস্ততার কারনে এক সঙ্গে পাঁচ ভাইয়ের বাবার কাছে আসা হয় না খুব একটা। তবে ঢাকায় গিয়ে ছেলেদের খেলা দেখেন এই গর্বিত বাবা। এই পাঁচ সন্তানকে নিয়ে গর্বের শেষ নেই বাবা ইদ্রীস আলী সরদারের।

পিরোজপুর পোষ্ট প্রশ্ন : এখন আপনার অনুভুতি কেমন ?
উওরে ইদ্রিস আলী সরদার বলেন, আমার ৫ ছেলে আজ দেশ সেরা ফুটবলার এর চেয়ে গর্বের বিষয় আমার আর কি বা হতে পারে । যে খেলার জন্য আমাকে চাকরি পর্যন্ত হারাতে হয়েছিল। বিভিন্ন কারনে খুব ভালমানের ফুটবল আসরে খেলার সুযোগ হয়ে ওঠে নি । কিন্তু আমার সেই স্বপ্ন আজ বাস্তবায়ন করছে আমার ৫ ছেলে । যখন ওদের পায়ে গোল হয়, আর সবাই আনন্দ পায় ও উল্লাস করতে থাকে । একজন বাবা হিসেবে আমার বুকটা তখন গর্বে ভরে যায় । আমার প্রত্যাশার সবটুকুই ওরা পূরন করেছে ।

পিরোজপুর পোষ্ট প্রশ্ন : আপনাদের এই সাফল্যের পিছনে কে ছিলেন ?
উওরে কনিষ্ঠ ছেলে এমেকা বলেন, বাবা পাশে ছিলেন বলেই আমরা ৫ ভাই খেলোয়াড়। বাবাকে কখনওই বলতে শুনিনি আমাদের ডাক্তার বা ইঞ্জিনিয়ার হতে হবে। বরং খেলার মধ্য দিয়েই বাবা আমাদের বড় হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন। আমাদের এই সাফল্যেও পিছনে বাবা ও আমাদের বড় ভাই লিটন ছিলেন । বাবার অনুপ্রেরনা আমাদের এই অবস্থানে নিয়ে এসেছে । বাবা সব সময়ই আমাদের মনোবল যোগাতেন ও সাহস দিতেন ।

এই পরিবারটি এলাকার মানুষের কাছে ফুটবল পরিবার নামে পরিচিত। ফুটবলের বিকাশ ও বাবার স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এলাকার অন্য খেলোয়াড়দের প্রশিক্ষনসহ উদ্দিপনা যোগান এই পাঁচ ভাই। ব্যস্ততা আর খেলার কারনে হয়তো তারা বাবা-মায়ের সাথে খুব বেশি সময় না দিতে পারলেও বাবার স্বপ্ন পূরনে ৫ ভাই এগিয়ে চলছে নিরন্তর ।

আরো সংবাদ
পিরোজপুর পোষ্ট ২৪ ডটকম - ২০১৮-২২। (অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের ছবি, ভিডিও ও সংবাদ কপি করা থেকে বিরত থাকুন)
Theme Customized By PIROJPURPOST24
কারিগরি সহায়তায়: Website-open
x