25 September- 2020 ।। ১০ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ


কাউখালীতে খাজনা আদায়ে অনিয়মের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি : পিরোজপুরের কাউখালীতে হাট-বাজারের খাজনা (টোল) আদায়ে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। চাহিদা মতো খাজনা না দিলে মারধরের অভিযোগ উঠেছে খাজনা আদায়কারীদের বিরুদ্ধে।

সরকারি নিয়ম উপেক্ষা করে সাব ইজারা দিয়েছেন ইজারাদার। অতিরিক্ত খাজনা আদায় করেও ব্যবসায়ীদের দিচ্ছেন না কোন রশিদ। দূরদূরান্ত থেকে আসা খুচরা ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে তোলা হচ্ছে অধিক টাকা। আর তাই বেচা-কেনা করতে আসতে ভয় পাচ্ছেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। স্থানীয় বাজারে নেই কোনো খাজনা আদায়ের নির্ধারিত তালিকা। এ সব অনিয়মের অভিযোগে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীরা বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার ও পিরোজপুর জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দিয়েছেন।

জানা যায়, সপ্তাহে শুক্রবার ও সোমবার উপজেলার সদর বাজারে হাট বসে। আর হাটের ইজারাদার শাহ আলম নসু। তিনি ওই উপজেলা জাতীয় পার্টি জেপি’র সাধারণ সম্পাদক। এক মাস আগে ৬০ লাখ টাকায় সর্বোচ্চ মূল্যে ওই বাজারের ইজারাদার হিসাবে তিনি ইজারা পেয়েছেন।

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী ও স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, ইজারা আদায়কারীদের চাহিদা মতো খাজনা না দিলে ব্যবসায়ীদের গলাধাক্কা বা কখনো কখনো মারধরও করা হচ্ছে। এমন কি বাড়িতে বসে কোনো কিছু বিক্রি করলেও তার খাজনা দিতে হচ্ছে।

ওই বাজারের মাছ ব্যবসায়ী মোহাম্মদ সোহেল বলেন, চটে বসে জায়গার ভাড়া দিয়েই মাছ বিক্রি করি। বেচা-কেনার শুরুতেই ইজারাদারের লোকজনকে ১৫০ থেকে ২০০ টাকা করে খাজনা দিতে হয়। কিন্তু টাকা নিয়ে কোন রশিদ দেওয়া হয় না।

বাজারের মাছ ব্যবসায়ী মোহাম্মদ রাকিবুল ইসলাম বলেন, বাজারে ব্যবসায়ীদের সুরক্ষার কোনো ব্যবস্থা নেই। রোদ-বৃষ্টিতে খোলা আকাশের নিচে কাদা মাটিতে বসে ব্যবসা করতে হয়। কিন্তু খাজনায় কোনো মাফ নাই। সরকারি রেটের নিয়ম ৭ টাকা। কিন্তু নিচ্ছে ৫০ থেকে ৩০০ টাকা পর্যন্ত। এমনকি এলাকার বাড়ির গাছ বিক্রি করলেও সেই বাড়ি গিয়ে তারা খাজনা আদায় করেন।

বাজারের সুপারী ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম জানান, ঘরে বসে সুপারী ক্রয়ে কোনো খাজনা নেওয়ার নিয়ম নাই। কিন্তু তারপরেও কেজি প্রতি ১টাকা করে খাজনা নেওয়া হয়। আমরা এ টাকা না দিলে বিক্রেতাদের কাছ থেকে শতকরা ৫ টাকা করে নেওয়া হয়। এতে বাজারে বিক্রেতা আসা বন্ধ হয়ে যাওয়ার ভয়ে আমরা ক্রেতারা খাজনা দিচ্ছি।

উপজেলার সদর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি রেজাউল করিম রতন জানান, চন্দিনা ভিটিতে থাকা ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে খাজনা আদায়ের নিয়ম না থাকলেও তাদের কাছ খাজনা আদায় করা হচ্ছে। এছাড়া বাজারে খাজনা আদায়ে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। ব্যবসায়ীরা বিষয়টি ডিসি (জেলা প্রশাসক) স্যারকে জানিয়েছেন।

বাজারের ইজারাদার শাহ আলম নসু’র সঙ্গে মোবাইলে কথা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, শুক্রবার (২৮ আগস্ট) বাজারের বিভিন্ন স্থানে খাজনা আদায়ের চার্ট দেয়া হয়েছে। কোনো সাব ইজারা দেওয়া হয় না। সরকারি নিয়মে বিক্রেতার বিক্রয় করা টাকার শতকরা ৫ টাকা হারে খাজনা আদায়ের বিধান রয়েছে। কিন্তু আমরা সে অনুযায়ী আদায় না করে শতকরা এক টাকা হারে আদায় করি। কোনো ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ২ থেকে আড়াই টাকা নেওয়া হচ্ছে। গত কোরবানিতে গরুর হাটে প্রতি গরুতে ৫ হাজার টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা খাজনা হলেও আমরা গরু প্রতি মাত্র ৫০০টাকা করে নির্ধারণ করে খাজনা আদায় করেছি। সুপারির হাটে শতকরা ৫ টাকা খাজনা আদায়ের নিয়ম থাকলেও আদায় করছি শতকরা মাত্র ৫০ পয়সা হারে। আগের বছর বাজারের ইজারাদার হারুন অর রশিদ প্রতি দোকান থেকে ১৫০-৩০০ টাকা করে আদায় করতেন। তিনিই আমার সম্মান নষ্ট করতে কিছু লোক দিয়ে এমন সব অভিযোগ করাচ্ছেন।

হাট-বাজার ইজারা দেয়ার কর্তৃপক্ষ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা: খালেদা খাতুন রেখার সঙ্গে মোবাইল কথা হলে তিনি জানান, জেলা প্রশাসক (ডিসি) স্যার ব্যবসায়ীদের দেওয়া অভিযোগ আমাকে খতিয়ে দেখার জন্য বলেছেন। উভয় পক্ষের সঙ্গে কথা বলে অভিযোগের ও অনিয়মের সত্যতা পেয়েছি। সরকার নির্ধারিত খাজনা উল্লেখ করে বাজারে ইজারাদারকে চার্ট টানিয়ে দেয়ার নির্দেশনাসহ খাজনার আদায়ের সময় রশিদ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি।




আরো সংবাদ




   

সম্পাদক ও প্রকাশক : কে.এস.রায়

  • অস্থায়ী অফিস : লইয়ার্স  প্লাজা , পিরোজপুর ।
  • যোগাযোগ : ০৯৬৩৮০৪৭৫৭৩
  • ইমেইল : pirojpurpost24@gmail.com
টপ
ভান্ডারিয়ায় স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা ভান্ডারিয়ায় অজ্ঞাত লাশের পরিচয় মিলেছে পিরোজপুর জেলা ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক গ্রেপ্তার ইন্দুরকানীতে শিশুকে যৌন নিপীড়নের ঘটনায় ১৮ দিন পর মামলা ইন্দুরকানীর তিন ফার্মেসীকে মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ রাখোর দায়ে জরিমানা ভান্ডারিয়ায় মাথাবিহীন অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিমের মায়ের দাফন সম্পন্ন ভিপি নূরের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা জামিনের মেয়াদ বাড়লো আউয়াল দম্পতির কচা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে বৃদ্ধ নিখোঁজ