1. pirojpurpost24@gmail.com : admin :
  2. kumarshuvoroy@gmail.com : Shuvo Roy : Shuvo Roy
  3. epiropur@gmail.com : e p : e p
  4. eshuvo1@gmail.com : shuvo roy : shuvo roy
ইন্দুরকানীতে বুলবুল ভেঙ্গে দিল কলা চাষি আলমগীরের স্বপ্নের বাগান | পিরোজপুর পোষ্ট ২৪
শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ০২:৩৫ পূর্বাহ্ন

ইন্দুরকানীতে বুলবুল ভেঙ্গে দিল কলা চাষি আলমগীরের স্বপ্নের বাগান

  • শেষ হালনাগাদ : শুক্রবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৪৭৪ জন সংবাদটি দেখেছেন

ইন্দুরকানী প্রতিনিধিঃ
ইন্দুরকানীতে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল ভেঙ্গে দিল কলা চাষি আলমগীরের সএপ্নর বাগান। উপজেলার পত্তাশী ইউনিয়নের চরনী পত্তাশী গ্রামের বাসিন্ধা আলমগীর সেখ সফলতার স্বপ্ন নিয়ে শুরু করে ছিলেন কলা চাষ। নিজের জমা জমি ছিলনা তাই অন্যের জমি বর্গা নিয়ে তার এই পথচলা শুরু করে প্রায় ১২/১৩ বছর আগে থেকে। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ডাকদিয়ে যাই ইন্দুরকানী শাখা থেকে লোন নিয়ে তার ব্যাবসা চলছিল ১০ সেপ্টেম্বর শনিবার ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাকে সব লন্ড ভন্ড করেদিল বর্গা চাষি আলমগীরের দুচোঁখ ভরা স্বপ্ন এখন দুচোঁখে শুধু অশ্রæ, কিভাবে কাটবে তার আগামী দিনগুলো আর কি করে বইবে সে এই ঋণের বোঝা।
আালমগীর চরনি পত্তাশিতে বিভিন্ন জনের মালিকানা জমি থেকে ৯ বিঘা (৬ একর) বাৎসরিক ১৫/২০ হাজার টাকা নগদ খাজনায় বন্ধক নিয়ে তার কলা চাষ শুরা করেন। আলমগীর সেখ জানান ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতে আমার কলা ক্ষেত একেবারে ধ্বংস হয়ে গেছে। আমি এখন নিঃস্ব। সরকার বা কোন সংস্থা থেকে আমরা কোন সহায়তা পাইনি। সরকার আমাদের সহযোগীতা করলে আমরা আবার কলার চাষ শুরু করতে পারব।
কলা চাষের উপর ২ বছর মেয়াদে ৩ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা ঋণ নেন বেসরকারি উন্নয় স্ংস্থা ডাকদিয়ে যাই ইন্দুরকানী শাখা থেকে যার ১২ কিস্তির ৯ কিস্তি দেয়া হয়েগেছে ঘূর্ণিঝড় বুল বুলের আঘাতের পূর্বে। বর্তমানে কয়েকটি কিস্তি বাকি এখন ডাকদিয়ে যাই সংস্থা ঋণের কিস্তির জন্য চাপ দিচ্ছে কিকরে ঋণের কিস্তি দেবে আর কিবা খাবে ছেলে সন্তান দের নিয়ে পাশে দাড়াবার কেহই নেই। কথা হয় কলা চাষি আলমগীরের সাথে তিনি জানান ঝড়ের পরে ক্ষেতের এই অবস্থাদেখে একবার আতœহত্যা করতে চেয়েছিলাম কিন্তু সন্তানদের ও সংসারের দিকে চেয়ে তা করতে পারিনায়।এখন কি করব আর কিদিয়ে ঋণ শোধকরবো বুঝতে পারছিনা। ঋণ নেয়ার সময় সংস্থায় বিমা করেছি এখন বিমার সুবিধাটুকুও দিতে চায়না স্ংস্থা তাদের কলা বাগানের অবস্থা দেখিয়েছি তারা এখন কিছু বলেনা। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় বাগানের কলাগাছের সব গুলো মাথা ভেঙ্গে পড়ে আছে আর চাষির চোখে পানি হাউমাইকরে কাদছে। পত্তাশী ইউপি ৮ নং ওয়ার্ড সদস্য মোঃ রুহুল আমিন জনান আমাদের পত্তাশীর সব থেকে বড় কলা চাষি আলমগীর সেখ তার কলাবাগানের যে ক্ষতি সাধন হয়েছে তা অনেক বেশি এখন তার যে অবস্থা যেকোন সময় এক্সিডেন্ট করতে পারে। তার ১০ লক্ষ টাকার উপরে ক্ষতি হয়েছে আলমগীরের।
এব্যাপারে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ডাকদিয়ে যাই ইন্দুরকানী শাখা ব্যবস্থাপক মাইকেল দাসের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান আমরা এখন পর্যন্ত উপরের কোন আদেশ পাইনী ঋণ গ্রহীতাদের কোন রকম সহায়তা দেয়ার। যদি অর্ডার হয় তবে ঋণগ্রহীতাদের সহায়তা দেয়া হবে।এছাড়া আমাদের কিছু করার নেই।

২০০৭ সালে প্রলয়ংকারি ঘূর্ণিঝড় সিডরের আঘাতের পরে বিভিন্ন সংস্থা ক্ষতি গ্রস্থদের সহায়তা দিয়েছে কিন্তু ১০ নভেম্বর ২০১৯ ইং তারিখের ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতের পরে বাংলাদেশের কোন উন্নয়ন সংস্থা কোন রকম সহায়তা দেবার জন্য এখনও এগিয়ে আসেনি। কিন্তু সিডরের মত বুলবুলেও অনেক ক্ষতি হয়েছে। সব থেকে বেশি ক্ষতি হয়েছে কলা চাষি দের।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হুমায়রা সিদ্দীকা জানান আমদের ইন্দুরকানী উপজেলায় কলাচাষিরা সবথেকে বেশি ক্ষতি গ্রস্থ হয়েছে।

আরো সংবাদ
পিরোজপুর পোষ্ট ২৪ ডটকম - ২০১৮-২২। (অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের ছবি, ভিডিও ও সংবাদ কপি করা থেকে বিরত থাকুন)
Theme Customized By PIROJPURPOST24
কারিগরি সহায়তায়: Website-open
x